রাজনীতির ছদ্দছায়ায় মহিলা দলের সভাপতি  শাহানাজসুলতানা দূর্নীতির পাহাড় ক্রমশয় বেড়ে যাচ্ছে অনিশ্চত ভবিষ্যৎ

রাজধানী উত্তর সিটি কর্পোরেশনের অধিনে গুলশান থানা এলকায় শাহানাজ সুলতানা কালাচাঁদপুর নিজ বাড়ি নং ৫০/৮ সি মহিলা দল ঢাকা মহানগর (উত্তর) বিএমপি এই মুখশের আড়ালে কাজ করে বেড়াচ্ছে অসহায় মানুষকে খুজে খুজে আলোর পথে নিয়ে আসবে বলে অঙ্গিকার করে তার সহোযোগির নাম (১) তালুকদার (২) মিজু আহমেদ (৩) সালমা (৪) সুমা এদেরকে দিয়ে বিভিন্ন ধরনের কজ করায় বিভিন্ন জায়গায় এতে বাদ পরছে না প্রতিবন্ধি ও ক্যান্সারের রোগিরা ও কিডনি হারা এদেরকে সরকারি ভাতা পাওয়ায় দেওয়া কে এই শাহানাজ একি সেই পাপিয়ার মত কার্জক্রম করে চলছে এখন লাগাম না টানতে পারলে এই সমাজে হাজার ও পাপিয়ার জন্ম হবে। পেয়ার আহমেদ নামে এক ব্যাক্তি মুক্তিযোদ্ধার কার্ড করে দিবে বলে কাগজ পত্র সাথে টাকা নিয়েছে আজ ও মুক্তিযোদ্ধার কার্ড পায়নি। আমি খাদিজা আক্তার এই অসহায় প্রতিবন্ধীদের হয়ে ভাটারা থানায় সাধারণ ডায়েরী করি যাহার জিডি নং ১২২ তারিখ ৪/৪/২০২০ ইং ২০১০ সালে বয়স্ক ভাতার কার্ড ২৫০ টি ফরম কমিশনার সাহেবের স্বাক্ষর করা আর ও প্রতিবন্ধী ২০০ শত এ গুলো কমিশনার সাহেবের স্বাক্ষর করানো আমি বুঝতে পারি না যে সে আমার সঙ্গে এ ভাবে প্রতারণা করবে এবং সঙ্গে ১০০০০ হাজার টাকা নগদ দেই সে সব বের করে আমাকে চেনেই না এ রকম ভাবে আমি কিছু নাম লিখে রেখে ছিলাম প্রতিবন্ধীরা হল এরা কুড়িল, কুড়াতলী, নিকুঞ্জ ও শেওড়া বাজার এর লোকজন এদের নাম (১) আখি (২) মনিকা (৩) মিম (৪) বিল্লাল (৫) জুয়েল (৬) সেলিনা (৭) আব্দুল হাই (৮) সেলিম (৯) তানজিন (১০) রিয়াদ (১১) বিল্লাল হোসেন (১৩) রবি (১৪) হাছিব (১৫) তানিয়া (১৬) কাইয়ুম (১৭) ঝর্ণা (১৮) সুমি (১৯) বিবি হাওয়া (২০) লিমা (২১) আব্দুল কাদের (২২) তাইরুল (২৩) হালিমা আক্তার (২৪) ছাব্বির (২৫) সিয়াম (২৬) আনছার আলী (২৭) আনোয়ারা বেগম (২৮) রকেয়া (২৯) আম্বিয়া খাতুন (৩০) লাল মিয়া (৩১) নূরনাহার (৩২) সুরুজ মিয়া (৩৩) রাশেদা বেগম (৩৪) মোঃ আক্তার (৩৫) জাহানারা বেগম (৩৬) রাবেয়া খাতুন (৩৭) জবেদা খাতুন (৩৮) শাহানাজ (৩৯) মইন উদ্দিন (৪০) সুরতন নেছা (৪১) আক্তার আলী (৪২) সুমি (৪৩) ইনজিলা (৪৪) ফুলজান (৪৫) খোদেজা (৪৬) বাদল (৪৭) তৈয়ব আলী (৪৮) জয়নাল আবেদীন (৪৯) রাজ্জক (৫০) সিরাজ (৫১) আলী আহমেদ সহ এখাবে হাজার ও অসহায় প্রতিবন্ধী মানুষ এই শাহানাজ এর হাতে প্রতারণার শিকার হয়েছে। এই শাহানাজ এদের নামে কার্জ করিয়া তার বাসায় তার নিজ বাসায় রেখে তিন মাস পর পর তিনি টাকা উত্তোলন করে ভোগ করছেন অথচ এই সব অসহায় প্রতিবন্ধীদের সাথে সে দিন এর পর দিন প্রতারণা করে আসছে বিভিন্ন দৈনিক প্রত্রিকায় এ ব্যাপারে খবর প্রচার করা হয় তবুও প্রশাসন এর বিরুদ্ধে কোন আইনগত ব্যবস্থা নেয় নি দ্রুত এই শাহানাজকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি কামনা করছি।

২৪ বাংলাদেশ নিউজ/কামাল হোসেন

আরও পড়ুন