ধেয়ে আসছে ফুটবল মাঠের সমান গ্রহাণু

ধেয়ে আসছে ফুটবল মাঠের সমান গ্রহাণু

২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে, ২০ মিটার প্রস্থের একটি গ্রহাণু ঢুকে পড়ে রাশিয়ার চেলিয়াবিনস্কের বায়ুমণ্ডলে। ভূপৃষ্টের ১৮ মাইল উপরে দেখা যায় তীব্র আলোকচ্ছটা।

আজ পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে অতিক্রম করবে ফুটবল মাঠের সমান একটি গ্রহাণু। ঘণ্টায় ৩৮ হাজার ৬শ ২৪ কিলোমিটার বেগে ছুটে আসছে এটি। ৩৯৪ ফুট ব্যাসের এই গ্রহাণুর নাম দেয়া হয়েছে টোয়েন্টি-টোয়েন্টি কিউএলটু। বিজ্ঞানীরা এতে কোনো বিপদ না দেখলেও নাসা বলছে, পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে অতিক্রম ও বিশালত্বের কারণে বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে এটি।

 

১৪ আগস্ট প্রথম দেখা মেলে গ্রহাণু টোয়েন্টি-টোয়েন্টি কিউএলটু-র। এটি ছুটে আসছে ঘণ্টায় ৩৮ হাজার ৬শ ২৪ কিলোমিটার বেগে। আজ সেটি পৃথিবীর ৬ দশমিক ৮ মিলিয়ন কিলোমিটার কাছে চলে আসবে। তবে এতে পৃথিবীর কোনো বিপদ দেখছেন না বিজ্ঞানীরা। বলছেন, নিরাপদ দূরত্ব রেখে মহাবিশ্বে হারিয়ে যাবে ফুটবল মাঠের সমান গ্রহাণুটি।

 

নাসা বলছে, পৃথিবীর এতো কাছ দিয়ে অতিক্রম ও বিশাল আকারের কারণে এটি বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে। সম্প্রতি পৃথিবী অতিক্রম গ্রহাণুর মধ্যে টোয়েন্টি-টোয়েন্টি কিউএলটু আকার সবচেয়ে বেশি, এর ব্যাস ৩শ ৯৪ ফুট।

 

এর আগে ১৬ আগস্ট পৃথিবীর পাশ দিয়ে চলে গিয়েছিল টোয়েন্টি-টোয়েন্টি কিউজি। পৃথিবী থেকে দূরত্ব ছিলো ২ হাজার ৯৫০ কিলোমিটার। অতিক্রমের ৬ ঘণ্টা পর, গ্রহাণুটি দেখতে পায় ক্যালিফোর্নিয়ার দ্য পালোমার অবজারভেটরি।

 

২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে, ২০ মিটার প্রস্থের একটি গ্রহাণু ঢুকে পড়ে রাশিয়ার চেলিয়াবিনস্কের বায়ুমণ্ডলে। ভূপৃষ্টের ১৮ মাইল উপরে দেখা যায় তীব্র আলোকচ্ছটা। হিরোশিমায় ফেলা পারমানবিক বোমার চেয়ে এর ক্ষমতা ছিল ৩৩ গুণ বেশি। এতে আহত হয়েছিলেন দেড় হাজারের বেশি মানুষ।

আরও পড়ুন