আদালতে দোষ স্বীকার করলো ৩ আসামি

আদালতে দোষ স্বীকার করলো ৩ আসামি

গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে এমসি কলেজের ফটকের সামনে বেড়াতে যাওয়া এক তরুণী ও তার স্বামীকে জোরপূর্বক কলেজের ছাত্রাবাসে নিয়ে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে ধর্ষণ করেন একদল তরুণ।

সিলেটের এমসি কলেজে ধর্ষণ ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন রনি, আইনুদ্দিন ও রাজন। এ নিয়ে মামলার ৬ আসামি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেন।

 

শনিবার দুপুরে ৫ দিনের রিমান্ড শেষে তিন আসামিকে মহানগর হাকিম আদালতে নেয়া হলে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন তারা। গতকাল মামলার আরো তিন আসামি সাইফুর, অর্জুন ও রবিউলের জবানবন্দি নেয়া হয়।

 

এদিকে, ধর্ষণ মামলার দুই আসামি তারেক আহমদ ও মাহফুজুর রহমান মাসুমের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

 

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের উপ-পরিচালক হিমাংশু লাল রায় জানিয়েছেন, হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে দুপুরে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

 

এর আগে বৃহস্পতিবার সাইফুর, অর্জুন, রবিউল, রনি, রাজন ও আইনুদ্দিনের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

 

গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে এমসি কলেজের ফটকের সামনে বেড়াতে যাওয়া এক তরুণী ও তার স্বামীকে জোরপূর্বক কলেজের ছাত্রাবাসে নিয়ে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে ধর্ষণ করেন একদল তরুণ। এ ঘটনায় সেদিন রাতেই ভুক্তভোগীর স্বামী বাদী হয়ে সিলেটের শাহ পরান থানায় ছয় জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত তিন জনকে সহযোগী হিসেবে উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন।

আরও পড়ুন