হাজী সেলিমকে জেলে যেতেই হবে’

জেলে যেতেই হবে ঢাকা-৮ আসনের সরকার দলীয় এমপি হাজী সেলিমকে। কারাগারে থেকেই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে হবে তাকে। এ কথা জানিয়েছেন আইনজীবীরা। এদিকে তার আইনজীবী জানান, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে খালাস চেয়ে আপিল করবেন তারা। অন্যদিকে দুদক আইনজীবী বলছেন, সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ থেকে খালাস দেয়ার রায়ের বিরুদ্ধে তারাও করবেন আপিল।

সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে মামলা ও দণ্ড হলেও ১৪ বছর ধরে জামিনেই আছেন হাজী সেলিম। গতকাল বুধবার (১০ মার্চ) প্রায় ২৭ কোটি টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় ১০ বছরের সাজা বহাল থাকার পর জেলে যেতে হচ্ছে আলোচিত এই এমপিকে। এমনকি এমপি পদের সুতোয় পড়েছে টানও।

দণ্ডিত হওয়ার পর হাজী সেলিমের বাসায় গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। এমনকি স্থানীয় জনগণও এ বিষয়ে কেউ মুখ খুলতে রাজি নন। তবে রায়ের পর আইনজীবীকে নিজের হতাশার কথা জানিয়েছেন তিনি।

হাজী সেলিমের আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা বলেন, আমরা রায়টা হাতে পেয়ে কোর্টে আত্মসর্মপণ করব। এরপর সমস্ত কাগজপত্র নিয়ে আপিল বিভাগে লিফট আপিল ফাইল করব। উনাকে কারাগারে জেতে হবে। সে সময়ে তার শারীরিক বিষয়গুলো রয়েছে। আইনে বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যেই খালাস চেয়ে আপিল করা হবে।

দুদক অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান বলেন, সম্পদের তথ্য গোপনের দায় থেকে খালাস দেয়ায় তারাও সংক্ষুব্ধ। প্রস্তুতি নিচ্ছন তার সাজা বাড়ানোর আপিল করার।

হাজি সেলিমের রাজনৈতিক যাত্রা শুরু নব্বইয়ের দশকের শেষের দিকে। এর মধ্যে ঘটেছে দল বদলের ঘটনা। এই সময়ে বেড়েছে রাজনৈতিক পদ এবং প্রতিপত্তি দুটোই। দুর্নীতি মামলার এ রায় হাজী সেলিমের কী হবে সেটিই এখন দেখার বিষয়।

সূত্রঃ সময় নিউজ
আরও পড়ুন