“ছিন্নমূল শিশুরা জড়িয়ে পড়ছে নেশার জালে” রুখবে তাদের কে ?

"ছিন্নমূল শিশুরা জড়িয়ে পড়ছে নেশার জালে" রুখবে তাদের কে ?

তবে এ সব পথ শিশুরাও মানুষ! এদেরও সুন্দর ভাবে বেঁচে থাকার অধিকার আছে। আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ । তাহলে কি তাদের পাশে কেউ এসে দাঁড়াবে না ? তারা কি এভাবেই ধুকে ধুকে নেশা গ্রস্থ হয়ে ভবিষ্যতে সন্ত্রাস,চাঁদাবাজে পরিনত হবে ? এ রকম হাজারও ছিন্নমূল ও পথ শিশুরা রাজধানীর ঢাকা সহ সারা দেশে এভাবেই অবহেলিত

কাজি আরিফ হাসানঃ

রাজধানীর উত্তরা জসিমউদ্দিন এলাকায় এই পথ শিশুরা গাম স্যুলশান আগুনে পুড়িয়ে ধোয়া নাকে নিয়ে নেশা করে। এদের দেখা যায় কখনো স্টেশন এলাকা,হাজী ক্যাম্প শুভ হোেেটলের সামনে আবার কখনো নিরব এলাকায় (রেল লাইনের আশপাশে) এ ভাবেই পথ শিশুরা নেশায় আশক্ত হয়ে পড়ে। এদেরও সুন্দর ভাবে বেড়ে ওঠার অধিকার আছে। এদের সম্পর্কে তথ্য নিয়ে জানা যায় এরা কেউ ভাঙ্গাড়ির দোকানে আবার কেউ টোকাইয়ের কাজ করে। এদের নেই কোন পরিবার,নেই কোন অভিভাবক। এলাকাবাসি জানায় তাদেরও সুন্দর ভাবে বেঁচে থাকার অধিকার আছে, আছে সুন্দর ভবিষ্যৎ। কিন্ত তাদের প্রতি দেশের বিত্তবানরাও ফিরে দেখেনা এমনকি তাদের সরকার ও এনজিও গুলোও কোন গুরুত্ব দিতে দেখা যায় না। তবে এ সব পথ শিশুরাও মানুষ! এদেরও সুন্দর ভাবে বেঁচে থাকার অধিকার আছে। আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ । তাহলে কি তাদের পাশে কেউ এসে দাঁড়াবে না ? তারা কি এভাবেই ধুকে ধুকে নেশা গ্রস্থ হয়ে ভবিষ্যতে সন্ত্রাস,চাঁদাবাজে পরিনত হবে ? এ রকম হাজারও ছিন্নমূল ও পথ শিশুরা রাজধানীর ঢাকা সহ সারা দেশে এভাবেই অবহেলিত ।এবিষয়ে এলাকার জনপ্রতিনিধি,সরকার ও এনজিও গুলো একটু সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলেই এ সব নেশাগ্রস্থ,বখে যাওয়া পথ শিশুরা এক সময় দেশের ভালো কাজে লাগতে পারে। এপথ শিশুরা এ দেতশের নাগরিক। তাই প্রতি একটু সহনুভতি দৃষ্টি রাখা সমাজে সবারই দায়িত্ব।

আরও পড়ুন