জাপানি হান্নান কারাগারে রিমান্ড শেষে

স্টাফ রিপোর্টারঃ

রাজধানীর দক্ষিণখানে আব্দুর রশিদ নামে এক ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা হত্যা ও অস্ত্র আইনের মামলায় আমিনুল ইসলাম হান্নান ওরফে জাপানি হান্নানকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শনিবার (৩ এপ্রিল) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাঈদ জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

হত্যা মামলায় দুই দফায় ছয় দিনের রিমান্ড শেষে জাপানি হান্নানকে এদিন আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা দক্ষিণখান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আজহারুল ইসলাম। একইদিনে অস্ত্র মামলায় দ্বিতীয় দফায় ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন আরেক তদন্ত কর্মকর্তা এসআই হাফিজুর রহমান।

জাপানি হান্নানের পক্ষে তার আইনজীবী অস্ত্র মামলায় রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। হত্যা মামলায়ও জামিন আবেদন করা হয়। রাষ্ট্রপক্ষে সংশ্লিষ্ট থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমানের বিরোধিতা করেন। শুনানি শেষে আদালত রিমান্ড ও জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

হত্যা মামলায় জাপানি হান্নানের গত ২৫ মার্চ চার দিন ও ৩০ মার্চ দু’দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গত ২৫ মার্চ জাপানি হান্নানের ছেলে-ভাইসহ সাতজনের দু’দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছিল। গত ২৮ মার্চ পুনরায় রিমান্ডের আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়। তারা এখন কারাগারে আছেন।

কারাগারে থাকা ওই সাতজন হলেন- হান্নানের ছেলে মো. ইকরামুল ইসলাম, ভাই শফিকুল ইসলাম ইমরান, আল-আমীন প্রধান, জহুরুল ইসলাম রিপন, খোরশেদ আলম, মো. মোশারফ হোসেন ও মো. নুরুন নবী।

এদিকে গত ২৫ মার্চ অস্ত্র মামলায়ও জাপানি হান্নানের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

দক্ষিণখানের আশকোনা এলাকায় বালু ব্যবসাকে কেন্দ্র করে গত ২৪ মার্চ দুপুরে জাপানি হান্নান ও সোহেল রেজা গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় আব্দুর রশিদকে গুলি করে হত্যা করেন জাপানি হান্নান। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে হান্নানের গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেন স্থানীয়রা।

আব্দুর রশিদকে হত্যার ঘটনায় তার ভাই হারুন অর রশিদ দক্ষিণখান থানায় জাপানি হান্নানসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

আব্দুর রশিদ রাজধানীর আশকোনা এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

আরও পড়ুন