শিবগঞ্জ নবান উৎসব মলায় ক্রতা- বিক্রতাদর ঢল

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
বগুড়ার শিবগঞ্জর উথলী গ্রাম সনাতন ধর্মাবলম্বীদর নবান উৎসব উপলক্ষ মঙ্গলবার (১৭ নভম্বর) সকাল থকই করানা প্রাদুর্ভারর মধ্যও বসছ মাছর মলা। এ মলায় ঢল নমছিল আশপাশর প্রায় শতাধিক গ্রামর মানুষর। এবারর মলায় দুই শতাধিক দাকান মাছ কনাবচা হয়ছ। শুধু মাছই নয় নবান উপলক্ষ বিপুল পরিমান চিড়া, মুড়ি, দই, নানান ধরনর মিষ্টি, শিতকালীন নতুন শাক সবজি সহ বিভিন ধরণর খাবারর পসরা সাজিয় ক্রতা বিক্রতায় মুখরিত হয়ছিল উথলী হাটর ওই মলায়।পঞ্জিকা অনুসার সনাতন ধর্মাবলম্বীরা বাংলা বর্ষর অগ্রহায়ন মাসর প্রথমই নবান উৎসব পালন করন। এবারা নবান উৎসব উপলক্ষ উথলী গ্রাম মাছর মলা বস। মলা উপলক্ষ রথবাড়ি, নারায়ণপুর, ধাদাকালা, সাদুল্লাপুর, বড়াবালা, আকনপাড়া, গরীবপুর, দবীপুর, গুজিয়া, মদনীপাড়া, বাকশন, গনশপুরসহ প্রায় শতাধিক গ্রামর মানুষ আগই ময়-জামাইদর নিম¿ণ কর। ঐতিহ্য মন নিম¿িতরা মাছ নিয় যান শ্বশুরবাড়িত। ধুমধাম কর শ্বশুরবাড়িত চল খাওয়া-দাওয়া। মলাত বিভিন প্রজাতির মাছ উঠছ। মলায় বড় আকারর মাছ কজিপ্রতি ৮০০ থক ১ হাজার এবং মাঝারি আকারর ২০০ থক ৫৫০ টাকায় বিক্রি হয়ছ। মলায় মাছর পাশাপাশি সবজির পসরাও সাজিয় বসছিলন বিক্রতারা। মলায় নতুন আলু বিক্রি হয়ছ ৩২০ টাকা থক ৪০০ টাকা কজি দর। এছাড়া মিষ্টি আলু ও কশর প্রতি কজি ১৬০ টাকায় এবং সিম ৮০ টাকা থক ২০০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, বাঁধা কপি ৭০ টাকা ফুল কপি ৮০ টাকা দর বিক্রি হয়। প্রায় দড়শত বছর আগ থক এই মলা বসছ। আগ মলায় মাছর এত কদর না থাকলও এখন মাছর কদর বড়ছ। বড় মাছ মলায় তালার ও কনার একটা প্রতিযাগিতাও দখা যায়। মাছর পাশাপাশি মলার দিন নতুন শাক-সবজিতও ভরপুর থাক। শুধু য মাছ আর সবজিই নয়, মলার শিশু-কিশারদর খলনার দাকান ও নাগরদালা বসছ। সই সঙ্গ মিষ্টান ও দইয়র একটি বড় বাজারও বসছ মলা চত্বর। সারি সারি দাকান গুলাত থর থর সাজানা রুই, কাতলা, চিতল, সিলভার কার্প, ব্লাডকার্প ব্রিগড, বাঘা আইড়, বায়ালসহ হরক রকমর মাছ। চলছ হাঁকডাক, দরদাম। মলায় মাছ কিনত আসা মাকামতলা এলাকার ধিরন চদ্র দাস জানান, উথলীর নবান মলায় বিক্রির জন্য আশপাশর এলাকার পুকুরগুলাত শখিন চাষীরা মাছ মজুদ কর রাখন। এলাকার ক কত বড় মাছ মলায় তুলত পারন, যন তারই প্রতিযাগিতা চল মাছচাষীদর মধ্য। এছাড়া আড়তদাররা তা আছই। এলাকার লাকজনও প্রতিযাগিতা কর তুলনামলক বড় মাছ কিন বাড়িত নিয় যায়। আমি নিজও ১২ কজি ওজনর একটা ব্রিগড ৪০০ টাকা কজি দর কিনলাম। বগুড়ার সারিয়াকাদি উপজলার থক আসা মাছ বিক্রতা মাসলম উদ্দিন জানান, মলায় ছাট-বড় মিল ২০০ মাছর দাকান বসছ। প্রত্যক বিক্রতা অÍত ৬ থক ১০ মণ কর মাছ বিক্রি করছন। মলায় মাছ সরবরাহর জন্য ২০টি আড়ৎ খালা হয়। সসব আড়ৎ থক ¯ানীয় বিক্রতারা পাইকারি দর মাছ কিন মলায় খুচরা বিক্রি করন। আমরা প্রায় ১০ বছর যাবৎ এই মলায় মাছ বিক্রি করছি। লাভ কমন হয় জানত চাইল তিনি হস বলন, প্রতি বছরই মলত আসি, ভালা লাগ। লাভর আশা করিনা তব অনক মাছ বিক্রি করত পারি। এলাকার প্রবীন বাসিদা অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক গণশ চদ্র শীল বলন, নবানর মলাক জামায় বরণ হিসব আমরা পালন করি। এ উপলক্ষ এলাকার সব জামায়দর আমরা নিম¿ণ কর থাকি। আমাদর এলাকার জামায়রা স্ব-স্ব শ^শুর বাড়িত বড় বড় মাছ ক্রয় করে।

আরও পড়ুন