অবৈধ পানির ফ্যাক্টরি ছড়াছড়ি উত্তর সিটিতে

উত্তরা প্রতিনিধিঃ
ভাজালদি বাজার অবৈধ পানির ফ্যাক্টরি ছড়াছড়ি হান্নানের গ্রামের বাড়ি ভোলা ভাজালদি বাজারে ছয় তলার পাশে গরে উঠেছে পানির ফ্যাক্টরি,
তার ভিতরে নাই কোন মেশিন পত্র রয়েছে দুটি টেবিল তার পাশে রয়েছে মোটা মোটা দুইটি বেত, সাংবাদিক অনুসন্ধানে নামলে বেড়িয়ে আসে তাহার অপকর্মের চিত্র তার মুঠোফোনে ফোন দিলে সে তার পরিচয় দিতে নাকোচ করে, সাংবাদিককে ফোনে হুমকি দেয়, তার মোবাইল নাম্বার 01734527818
এই নাম্বার দিয়ে সরেজমিনে অনুসন্ধান করে দেখা যায় ব্যাঙ্গের ছাতার মত অবৈধ পানির ফ্যাক্টরি যেমন জমজম পানির ফ্যাক্টরি, রোড নং ৪ /এ দলিপাড়া বাউনিয়া ম্যানেজমেন্টে আছে সোহেল, তার ফ্যাক্টরির কাগজপত্র চাইলে রাষ্ট্রপতির এলাকা বলে পরিচয় দেয়।
আরো দেখা যায় এভাবেই পদ্মা ওয়েল নামে পানির ফ্যাক্টরি ১৪ নং সেক্টর সেখানে অনুসন্ধানে চালাইলে রাজনীতিবিদের পরিচয় দেয়,খুশশু মামা নামে পরিচিত,
সাংবাদিকগনকে বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলের পরিচয় দেয়,যেমন কাউন্সিলর শরিফ, নাঈম,এদেরকে দিয়ে ভয়ভীতি দেয়,খুশশু মামা।
এদিকে রয়েছে জাকির,রয়েছে তার ফ্যাক্টরি, সাংবাদিক পানিতে কিনবে বলে তার মুঠোফোনে ফোন দেয়,পরে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে সে সাংবাদিককে বলে,ওরকম সাংবাদিক তার পকেটে থাকে,তার সাথে জড়িত আছে,রাজনৈতিক ব্যাক্তিগন,রয়েছে মন্ত্রীদেরও নাম,
মোবাইল 01760225872
রয়েছে এম এম ড্রিংকিং ওয়াটার বাড়ি নং ১১/২ রোড নাম্বার ৩ ওয়ার্ড নাম্বার ৫ ডিয়াবাড়ি, এখানে সাংবাদিক রাতের আধারে অঅনুসন্ধানে যায়,পরে বেড়িয়ে আসে,সেনা প্রধান আজিজ এর ছোট ভাই এর নাম।
এই ভাবে বড় বড় রাজনীতিবিদের নাম ভাংগিয়ে চলছে জমজমাট পানির ব্যাবসা,এক বোতল পানির দাম,৮০ থেকে ৯০ টাকা একেকটা কারখানায় প্রতিদিন ৮০০ — ১০০০— ১৫০০ শত বোতল পানি সরবরাহ করে থাকে।
প্রতিদিন হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ্য লক্ষ্য টাকা।
এরপরে আসছে আরেকটি প্রতিষ্ঠানের নাম, হীরা ড্রিংকিং ওয়াটার পরিচালনা করছে মোহাম্মদ হাফিজ,
সে ব্যাংকে জব করে,এভাবেই চলছে অবৈধ পানির ব্যাবসা,
একেকজন আংগুল ফুলে কলাগাছ।
আর এই ব্যাবসা চালাতে হলে কি কি কাগজপত্র লাগে এই ব্যাপারে কোন মালিক বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেনাই।
যেমন ১/ বি এস টি আই, এর অনুমোদন ২/ ট্রেড লাইসেন্স ৩/ ওয়াসা লাইনের ছাড়পত্র ৪/ সাস্থ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র।
পানি হবে দুই প্রকার, আরো পানি, ইউপি পানি,এই দুই প্রকার পানি এবং মিটার শো ০০ থাকলে পানি বিশুদ্ধ আছে, এবং যদি কোন সংখ্যা আসে তাহলে সরাসরি ওয়াসার লাইনের পানি।
এভাবেই চলছে রাজনীতির নাম ভাংগিয়ে এই চক্রটি, মোঃ হান্নান তার মুঠোফোনে হুমকি দেয়ার পর সাংবাদিক পশ্চিম থানায় উপস্থিত হয়ে সাধারণ ডায়েরি করে। জিডি নং ১১৫২ তারিখ ১৪/১১/২০২০ ইং দ্রুত এই চক্রটিকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির কামনা করছে শিক্ষিত সমাজ।

২৪বানি/মোহাম্মদ কামাল খান

আরও পড়ুন