স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় হাল্ট প্রাইজের নেতৃত্বে নাজির-নুসরাত

২০১৫ সাল থেকে বিশ্বখ্যাত হাল্ট প্রাইজ অন’ক্যাম্পাস প্রতিযোগিতা বাংলাদেশের প্রায় ১০০ টি বিশ্ববিদ্যালয় মাতিয়ে রেখেছে । স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়েও ২০১৮ সাল থেকে চলছে এই প্রোগ্রামটি। ২০২১ সালের অন ক্যাম্পাস প্রতিযোগিতার পর আবার নতুন করে কমিটি গঠন করেছেন ক্যাম্পাস ডিরেক্টর নাজির উদ্দিন। ডেপুটি ক্যাম্পাস ডিরেক্টর, নুসরাত জাহান। হেড অব জাজ ম্যানেজমেন্ট, আরিফা খানম তৃপ্তি। হেড অব প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট, সুমাইয়া মেহজাবিন।হেড অব পাবলিক রিলেশনশিপ, শাফিন বারি। হেড অব ব্র্যান্ড অ্যান্ড মার্কেটিং,  রিফাহ তাসনীম। কন্টেন্ট ক্রিয়েটর, সাইদুল ইসলাম। গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে আরিফুল ইসলাম মিশুক এবারও তার পদে বহাল রয়েছেন।নতুন অর্গানাইজিং কমিটিই পরিচালনা করবে স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এবারের হাল্ট প্রাইজ অন ক্যাম্পাস প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান।
“হাল্ট প্রাইজ” হল একটি বার্ষিক প্রতিযোগিতা যেখানে বিভিন্ন ধরণের সামাজিক সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজের ছাত্রছাত্রীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করে।২০১০ সালে আহমেদ আস্কার কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত হয় হাল্ট প্রাইজ এবং এর অর্থায়নে ভূমিকা রাখেন বার্টিল হাল্ট, তাই  তার নামানুসারে  প্রতিযোগিতার নামকরণ করা হয় “হাল্ট প্রাইজ”।  পরবর্তীতে হাল্ট পরিবার, এডুকেশন ফার্স্ট-এর প্রতিষ্ঠাতা প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দলকে ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অনুদানে এগিয়ে  আসে।বর্তমানে হাল্ট ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস স্কুল এবং ইউনাইটেড  ন্যাশন্স ফাউন্ডেশন এর অংশীদারিত্বে অব্যাহত আছে হাল্ট প্রাইজ।অর্থনীতিতে নোবেল বিজয়ী ড. মোহাম্মদ ইউনুস  হাল্ট প্রাইজকে “নোবেল প্রাইজ ফর স্টুডেন্টস” বলে অভিহিত করেন।প্রাক্তন ইউ এস প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন প্রতি বছর একটি চ্যালেন্জ নির্ধারণ করেন, যেটাকে কেন্দ্র করে সারাবিশ্বের তরুণ প্রজন্ম তাদের নিজস্ব চিন্তাভাবনার আলোকে সমাধানমূলক বিভিন্ন বিজনেস আইডিয়া উপস্থাপন করে।
টুয়েন্টিফোর বাংলাদেশ নিউজ/মুন্না শেখ
আরও পড়ুন