বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিনে ৩৮৩ জন গ্রেপ্তার

রাজধানীতে কঠোর লকডাউনের দ্বিতীয় দিন বিধি ভেঙে গ্রেপ্তার হয়েছেন ৩৮৩ জন। বিনা প্রয়োজনে বাসা থেকে বের হওয়ার অভিযোগে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া ১৩৭ জনকে জরিমানা করা হয়েছে ৯৫ হাজার ২৩০ টাকা। আর ১০ লাখ ৮৩ টাকা জরিমানা করা হয়েছে ৪৪১টি গাড়িকে।

শনিবার সকাল থেকেই সড়কের চেকপোস্টে ছিল সেনাবাহিনী, বিজিবি ও পুলিশ সদস্যদের নজরদারি। তবে ঢাকার প্রবেশ পথগুলোতে ছিলো মানুষের চাপ।

রাজধানীতে প্রবেশদ্বার সাইনবোর্ড এলাকা। কোনো একটি লেগুনা পৌঁছানো মাত্র হুড়োহুড়ি করে উঠছেন যাত্রীরা। কঠোর লকডাউনের দ্বিতীয় দিনের দৃশ্য এটি। শুধু লেগুনাই নয়, যে কোনো গাড়ি থামলেই এভাবে ঢাকায় প্রবেশের চেষ্টা করছেন অনেকে। পিকআপেও দেখা গেছে যাত্রী।

রাজধানীর বিভিন্ন প্রবেশ পথে সকাল থেকে দেখা যায় অফিসগামীদের ভিড়। গণপরিবহন না থাকায় চেকপোস্টে আইডি কার্ড দেখিয়ে অনেকে গন্তব্যেরে উদ্দেশ্যে রওনা হচ্ছেন হেঁটে।

বৃষ্টির মধ্যেও লকডাউন কার্যকরে তৎপর ছিলেন আইন শৃঙ্খলাবাহিনী। প্রায় প্রতিটি গাড়ি থামিয়ে জানতে চাওয়া হয় চলাচলের কারণ। তবে লকডাউনের প্রথমদিনের তুলনায় শনিবার সকালে সড়কে গাড়ি ও লোকজনের চলাচল ছিলো কিছুটা কম।

সেনাবাহিনীর পাশাপাশি র‍্যাব, বিজিবিও বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে লোকজনকে থামিয়ে বের হওয়ার কারণ জানতে চায়। অনেক এলাকায় পরিচালনা করা হয় ভ্রাম্যমাণ আদালতও।

ঈদুল আজহার কারণে ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়। পরে ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত ‘কঠোরতম বিধিনিষেধ’ জারি করে সরকার। আজ এই বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিন ছিল।

টুয়েন্টিফোর বাংলাদেশ নিউজ/এসকে
আরও পড়ুন