ভারতকে হারিয়ে সাফের শিরোপা বাংলাদেশের মেয়েদের

সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে এক গোলের দুর্দান্ত জয় পেল বাংলাদেশ। ফলে শিরোপার মুকুট এখন মারিয়া-মান্দাদের মাথায়।

কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে বুধবার মেয়েদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতকে ১-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ।

খেলার ৭৯ মিনিটে কাঙ্খিত গোলের দেখা পায় লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। আনাই মগিনি এগিয়ে দেন বাংলাদেশকে। শাহেদা আক্তার রীপার ব্যাকহিল থেকে বল ধরেই দূল্লার শট করে আনাই গোল করলে উল্লাসে ফেটে পড়ে স্টেডিয়ামের দর্শকরা। ম্যাচের বাকি সময় আর কোনো গোল না হলে উল্লাসে মাতে পুরো বাংলাদেশ।

২০১৮ সালে অনূর্ধ্ব-১৮ বছর বয়সীদের নিয়ে হওয়া এই প্রতিযোগিতায় নেপালকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল বাংলাদেশ। সে হিসাবে মুকুট ধরে রাখার মিশনে ছোটনের দল।

প্রথমার্ধ শেষে গোলশূন্য ছিল স্বাগতিক দল। দ্বিতীয়ার্ধে ভারতের জালে একবার বল জড়ালেও রেফারি তা বাতিল করে দেন। তবে ম্যাচের ১০ মিনিট বাকি থাকতে কাঙ্খিত সাফল্য পায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

এদিন কমলাপুর স্টেডিয়ামে সবচেয়ে বেশি দাপট দেখিয়েছে বাংলাদেশই। ম্যাচের ১৫ মিনিটের আগে একটি গোল পেয়েও যেতে পারত গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। তবে গোললাইনের উপর থেকে ভারতের গোলরক্ষক বল গ্লাভসে পুড়ে নিলে বঞ্চিত হয় বাংলাদেশ।

প্রথমার্ধের বাকি সময়টায়ও ভারতের জালে একের পর এক আক্রমণ করে মারিয়া মান্ডার দল। শুধু ভাগ্যই সহায় ছিল না লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের।

ম্যাচের ২৫ মিনিট অতিবাহিত হলে আক্রমণে কিছুটা ধার কমে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যদের। এ সময় ভারত দুয়েকটি বল বাংলাদেশের গোলপোস্ট অভিমুখে নিয়ে এসে শঙ্কা জাগায় লাল-সবুজ শিবিরে। তবে গোল আর পায়নি তারা।

৩৫তম মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে দারুণ এক আক্রমণ সাজান বাংলাদেশের রিপা। তবে তিনি বল অন্য প্রান্তের সতীর্থের কছে পৌঁছাতে পারেননি। ফলে বৃথায় যায় মেয়েদের প্রচেষ্টা। এর মিনিটখানেকের মধ্যে এমন আরেকটি আক্রমণের সাক্ষী হয় কমলাপুর স্টেডিয়াম।

বিপরীতে ভারতের মেয়েরা বলতে গেলে বাংলাদেশের জাল বরাবর বল নিয়েই আসতে পারেনি। রক্ষণভাগের দৃঢ়টায় সব অতিক্রম করতে সক্ষম হয় রব্বানীর শিষ্যরা।

দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম পাঁচ মিনিটে বেশ কটি শক্তিশালী আক্রমণ করে স্বাগতিক দল। ৫০তম মিনিটে ডি বক্সের ভেতর বল পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা।

দশ মিনিট পর রিপার উড়ন্ত ক্রস একটুর জন্য জালে জড়াতে ব্যর্থ হন শামসুন্নাহার। তার হেডে বল চলে যায় বারপোস্টের উপর দিয়ে। ৬৪তম মিনিটে লাফিয়ে উঠে ভারতের একটি প্রচেষ্টা ঠেকিয়ে দেন বাংলাদেশের গোলরক্ষক।

বাংলাদেশের দাপট সত্ত্বেও ম্যাচের বয়স যতই বাড়ছিল ততই গোল না পাওয়ার শঙ্কা ঝেঁকে বসছিল। আগের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে যে গোলটি এসেছিল সেটি যে ম্যাচের প্রথম দিকে।

তবে ম্যাচের ১৬ মিনিট বাকি থাকতে ভারতের জাল ভেদ করে স্বাগতিক দল। তবে রেফারি গোল বাতিল করে দেন।

আরও পড়ুন