এখনি লকডাউন নয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান-রেস্টুরেন্টে দেখাতে হবে টিকা কার্ড

অনলাইন ডেস্কঃ

করোনা নতুন ধরণ ওমিক্রনের সংক্রমণ বাড়ছে তবে এখনি লকডাউন নয়, এ অবস্থায় প্রতিরোধে গুরুত্ব বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। ১৫ দিনের মধ্যে করোনার নতুন বিধি-নিষেধের প্রজ্ঞাপন জারি হবে বলেও জানান তিনি।

সোমবার রাতে সচিবালয়ে আন্তঃমন্ত্রনালয় সভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’ প্রতিরোধে রেস্টুরেন্টে খেতে টিকা কার্ড দেখাতে হবে। যারা টিকা নিয়েছেন তারা স্বাভাবিক ভাবে মাস্ক পড়ে রেস্টুরেন্টে যেতে পারবেন। যারা টিকা নেন নি তারা পারবেন না। খেতে গেলে টিকার প্রমাণপত্র দেখাতে হবে। না হলে সেই রেস্টুরেন্টের বিরুদ্ধও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে, যেতে হলে টিকা লাগবে। মাস্ক না পরলে জরিমানা করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

সভার সিদ্ধান্ত গনমাধ্যমকে জানিয়ে তিনি বলেন, বন্দর গুলোতে আরো টেস্টের সংখ্যা বাড়ানো, ঢিলে ঢালা কোয়ারেন্টাইন হবে না। সব ধরনের অনুষ্ঠান সংখ্যা কমানোর তাগিদ করা হবে। স্থলবন্দরগুলোতে স্ক্রিনিং বাড়ানোর কথা এসেছে। পাশাপাশি যারা বিদেশ থেকে আসবেন তাদের পুলিশ প্রহরায় কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করার বিষয়টি এসেছে, যাতে কেউ পালিয়ে যেতে না পারেন।

গণপরিবহনে সক্ষমতার কম যাত্রী পরিবহন কার্যকরের বিষয়টিও আলোচিত হয়েছে। সবক্ষেত্রে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতের বিষয়ে কথা হয়েছে। মাস্ক না পরলে জড়িমানার বিষয়টিও উঠেছে। লকডাউনে যাবার পরিকল্পনা নেই এই মুহূর্তে, করোনা বা অমিক্রম প্রতিরোধ এসব ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এদিকে দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম জানিয়েছেন, এ সপ্তাহের মধ্যেই করোনা টিকার বুস্টার ডোজ নেয়ার বয়সসীমা কমানো হবে।

খুরশিদ আলম বলেন, ওমিক্রন প্রতিরোধে সারা দেশেই বুস্টার ডোজ দেয়া হচ্ছে। ক্যান্সার, কিডনি রোগসহ দীর্ঘমেয়াদি রোগে আক্রান্তদের জন্য বয়সসীমা প্রযোজ্য নয়। তারা যে কোনো সময় বুস্টার ডোজ নিতে পারবে। যারা বিদেশে দুই ডোজ টিকা নিয়ে এসেছেন, তারা দেশে নিবন্ধন করে টিকা নিতে পারবেন।

আরও পড়ুন