মুরাদের বিরুদ্ধে থানায় স্ত্রীর জিডি

অনলাইন ডেস্কঃ

মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ তুলে সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করেছেন তার স্ত্রী ডা. জাহানারা এহসান। এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি ৯৯৯ ফোন করে সহযোগিতা চান।

এরপর বিষয়টি ধানমন্ডি থানা পুলিশকে জানানো হয়। পুলিশের একটি দল মুরাদ হাসানের বাসায় যায়। স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতন ও প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ আনেন মুরাদ হাসানের স্ত্রী।

মুরাদ হাসানের স্ত্রী জাহানারা এহসান ফোন করে অভিযোগ করেন, তাকে ও সন্তানদের মারধর, মানসিক নির্যাতন করা ছাড়াও মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছেন তার স্বামী। তিনি বলেন, মুরাদ হাসান কিছুদিন ধরে অকারণেই আমাকে ও সন্তানদের গালিগালাজ করছিলেন, চালাচ্ছিলেন মানসিক নির্যাতন। সেই সঙ্গে দিচ্ছিলেন হত্যার হুমকি।

জাহানারা এহসান বলেন, আগের মতোই আজ দুপুরে মুরাদ হাসান আমাদের গালিগালাজ করেন। একপর্যায়ে মারতে উদ্যত হন। এরপর আমি ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশের সহায়তা চাই।

এর আগে খালেদা জিয়ার নাতনি জাইমা রহমানকে নিয়ে অসৌজন্যমূলক বক্তব্য ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে কথোপকথনের অডিও ভাইরাল হলে বিতর্কের মুখে পড়েন মুরাদ হাসান। পরে প্রতিমন্ত্রীর পদ ছাড়তে হয় তাকে।

গত ১ ডিসেম্বর ফেসবুক লাইভে তৎকালীন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান অসৌজন্যমূলক বক্তব্য দেন খালেদা জিয়ার নাতনি জাইমা রহমানকে নিয়ে। যা সমালোচনার ঝড় তোলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

প্রতিবাদ জানায় সাধারণ জনগণ থেকে বিভিন্ন সংগঠন। এমনকি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও। পরবর্তীতে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সাথে তার কথোপকথনের অডিও ভাইরাল হলে তৈরি হয় নতুন বিতর্ক।

বির্তকের মুখে দেশ ত্যাগ করলেও কানাডায় ঢুকতে না পেরে দেশে ফিরে আসেন তিনি। তারপর থেকেই আড়ালে রয়েছেন মুরাদ হাসান।

আরও পড়ুন